দেশ ও মানুষের কথা বলে

[vc_row][vc_column]

[/vc_column][/vc_row]

ডিসকাস থ্রোতে ২৯ বছরের পুরোনো রেকর্ড ভাঙলেন পাঁচবিবির মেয়ে জাফরিন

ডিসেম্বর,২৮,২০২২

ফারহানা আক্তার, জয়পুরহাটপ্রতিনিধি:

গত ২৩ ডিসেম্বর-২০২২ বনানী আর্মি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু ৪৬ তম জাতীয় অ্যাথলেটিকসের দ্বিতীয় দিনে মেয়েদের ডিসকাস থ্রোতে শুধু সোনাই জিতেননি,২৯ বছরের পুরনো রেকর্ড ভেঙেছেন বাংলাদেশ নৌবাহিনীর এই অ্যাথলেট জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি উপজেলার উচাই গ্রামের কৃতি কন্যা জাফরিন আক্তার।২০১৯ সালে কাঠমুন্ডুতে দক্ষিণ এশিয়ান গেমসে মেয়েদের ডিসকাস থ্রোতে ৪১.২৯ মিটার দূরত্বে পাঠিয়ে ব্রোঞ্জ জিতেছিলেন শ্রীলঙ্কার ইশারা মাধুরাঙ্গি। তাঁর চেয়েও ২.২০ মিটার বেশি দূরত্বে চাকতি নিক্ষেপ করেছেন জাফরিন।
পড়াশোনাতেও দুর্দান্ত প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছেন জাফরিন। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইসলামিক ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর দুই বিভাগেই পেয়েছেন প্রথম শ্রেণি।
জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার উচাই গ্রামের মেয়ে জাফরিন।ছোটবেলা থেকেই বিভিন্ন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় অংশ নিতেন কিন্তু ঠিকমতো অনুশীলনের সুযোগ পেতেন না। এমনকি অনুশীলনে গেলে প্রতিবেশীরা সমালোচনা করতেন। এমন একটি কীর্তি করার পর সেই কঠিন দিনগুলোর কথা মনে করে জাফরিন বলেন, আমাদের এলাকায় মেয়েরা শর্টস আর ট্রাউজার পরে অনুশীলন করলে সবাই বাঁকা চোখে তাকায়। এলাকায় তাই অনেক সময় অনুশীলন ছাড়া বিভিন্ন গেমসে অংশ নিতাম। এরপর আমি বিকেএসপিতে এসে ভালোভাবে অনুশীলনের সুযোগ পেয়েছি। জাফরিনের বাবা স্কুল শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, দেশের ক্রিড়া খেলোয়ারদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশ সেরা কৃতি খেলোয়াড়দের আর্থিক পুরস্কার বাড়ি,প্লট প্রদান করে যেভাবে উৎসাহ দিয়ে থাকেন ঠিক সেভাবে অ্যাথলেটিক্স ইভেন্টে ডিসকাস থ্রোতে ২৯ বছরের পুরনো রেকর্ড ভঙ্গকারী কৃতি নারী খেলোয়াড় জাফরিনের ক্ষেত্রেও অনুরূপ সহযোগিতা করে উৎসাহিত করবেন। সে যেন সাউথ এশিয়ান গেমসে স্বর্ণপদক জয় করে দেশের জন্য সুনাম বয়ে আনতে পারে। আমি আমার কন্যার জন্য সকলের কাছে দোয়া ও আশীর্বাদ কামনা করছি। সেই সাথে স্থানীয় জেলা,উপজেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ে নারী খেলোয়াড় তৈরি ও তাদের উন্নতিতে আরো উৎসাহ ও সহযোগিতা আশা করছি। ভাই সাহিউল আলম শুভ বিকেএসপির বাস্কেটবলের প্রাক্তন খেলোয়াড়। বর্তমানে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীতে কর্মরত। বোন জাকিয়া সুলতানা বিকেএসপির শুটিং ও ক্রিকেট বিভাগের নিয়মিত প্রশিক্ষণার্থী।
তাই পরিবার থেকে খেলার ব্যাপারে সব রকমের সমর্থন পেয়েছেন। এমনকি বিয়ের পর শ্বশুরবাড়ি থেকেও সমর্থন পেয়েছেন। জাফরিন আরো বলেন,‘আমার বাবা সব সময় খেলার ব্যাপারে স্বাধীনতা দিয়েছে। এখন স্বামীও কোনো বাধা দেন না। সবার উৎসাহে খেলাধুলা করছি।
শুরুতে নৌবাহিনীর শটপুট ইভেন্টে অংশ নিতেন জাফরিন। কিন্তু তাঁর উচ্চতা (৫ ফুট ৯ ইঞ্চি) দেখে কোচ ডিসকাস থ্রোতে অংশগ্রহণের পরামর্শ দেন। সেই থেকে নিয়মিত জাফরিনের খেলা জাতীয় অ্যাথলেটিকস। জাফরিন বলেন,ভাবিনি যে রেকর্ড হয়ে যাবে.নিজের রেকর্ড দেখে নিজেই অবাক হয়েছি। সুযোগ সুবিধা পেলে অবশ্যই দেশকে এস এ গেমসের পদক এনে দিতে চাই?জাফরিন আক্তারকে নিয়ে এখন আশা করতেই পারে জাতীয় অ্যাথলেটিকস ফেডারেশন।

www.bbcsangbad24.com

Leave A Reply

Your email address will not be published.