জানুয়ারি ১৯, ২০২১,

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক

অনেক মানুষের ক্ষেত্রে করোনা আক্রান্ত হলেও তাদের শরীরে কোনো ধরনের উপসর্গ দেখা যায় না। এমন ব্যক্তিদের আক্রান্ত হওয়ার তথ্য দেবে ফিটনেস ট্র্যাকার। অ্যাপল, গারমিন ও ফিটবিটের মতো ফিটনেস ট্র্যাকারগুলো শরীর খারাপ লাগার আগেই আপনাকে বলে দিতে পারবে আপনি করোনা আক্রান্ত কি-না।

ফিটনেস ট্র্যাকার নির্মাতা এসব প্রতিষ্ঠানের দাবি, এই ফিটনেস ট্র্যাকারগুলো হার্ট রেট মনিটর করে। তাই ব্যবহারকারীর শরীর খারাপ হলেই এটা তা বুঝতে পারে। দুটি হার্ট বিটের মধ্যকার সময় অর্থাৎ হৃদস্পন্দের মাঝের সময়টা পরিমাপ করে এগুলো।

যদি কারো শরীরে কোনো ইনফেকশন না থাকে, তাহলে হৃদস্পন্দন ওঠা-নামা নির্ভর করে ব্যক্তি কোন পরিস্থিতিতে রয়েছে তার উপরে। সেক্ষেত্রে হার্ট-রেট পরিবর্তিত হবে নার্ভাস সিস্টেম, স্ট্রেসের উপরে নির্ভর করে। আর যদি শরীরে কোনো ভাইরাস থাকে, বিশেষ করে ইনফ্ল্যামেটরি ইনফেকশন, তা হলে নার্ভাস সিস্টেম খুব দেরি করে কাজ করে। ফলে হার্ট-রেটে সহজেই পরিবর্তন আসে না। এই বিষয়গুলো বিশ্লেষণ করেই ব্যবহারকারী সংক্রমিত কি-না তা বোঝা যাবে।

ক্যালিফোর্নিয়ার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণার লেখক মিশেল স্নিডার বলেন, স্মার্টওয়াচ বা ফিটনেস ট্র্যাকার ব্যবহারের সুবিধা হলো, যে কেউ একটু লক্ষ্য রাখলেই করোনা আক্রান্ত কি না তা বুঝতে পারবে। ফলে, যদি কেউ বুঝতে পারে যে তিনি করোনা আক্রান্ত, তা হলে অকারণ পরীক্ষা করার প্রবণতা কমবে। মানুষও সচেতন হয়ে যাবে, ফলে সংক্রমণ কম ছড়াবে।

www.bbcsangbad24.com

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here