ফেব্রুয়ারী,১০,২০২১

জয়নাল আবেদীন জয়, চাঁদপুর থেকে:

চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ বলেছেন, ‘গ্রামীণ জনগণের দোরগড়ায় বিচারিক সেবা পৌঁছে দিতে এবং উচ্চ আদালতের মামলার জট কমাতে কাজ করছে গ্রাম আদালত। আইনজীবি নিয়োগের বিধান না থাকায়, সহজে, কম সময়ে ও সমঝোতার ভিত্তিতে এখতিয়ারভুক্ত ছোটো-খাটো মামলাগুলো নিষ্পত্তি হওয়ার স্থানীয় পর্যায়ে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে গ্রাম আদালত গুরুত্বপ‚র্ণ ভ‚মিকা রাখছে।’

১০ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার সকালে জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত গ্রাম আদালত সর্ম্পকে ব্যাপক জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে স্থানীয় সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সম‚হের অংশগ্রহণে সমন্বিত পরিকল্পনা প্রণয়ন সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

সভায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক ও স্থানীয় বিভাগীয় উপ-পরিচালক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামান এর স্বাগত বক্তব্য ও পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মো: দাউদ চৌধুরী বলেন, গ্রাম আদালত মাত্র ১০-২০ টাকায় ৯০ দিনের মধ্যে স্থানীয় ছোটো খাটো বিরোধ মীমাংসা করতে পারে।

এ বিষয়ে ব্যাপক জনসচেতনতা বৃদ্ধি করতে উপস্থিত সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠান প্রতিনিধিবৃন্দ বলিষ্ঠ ভ‚মিকা পালন করবে। জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের দরিদ্র ও সুবিধা বঞ্চিত গ্রামীণ জনগণবিশেষত নারীদের মাঝে পৌঁঁছে দেবার জন্য সরকারি ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠান প্রতিনিধিবৃন্দ ও গণমাধ্যমের কর্মীদেরও আহŸান জানান।
এ সময় উপস্থিত, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সানজিদা শাহনাজ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আসাদুজ্জামান, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবিদা সিফাত,ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ মনজুর হোসেনসহ চাঁদপুরের ২৫ জন সরকারি-বেসরকারি বিভাগের ঊধর্তন কর্মকর্তাগণ মতামত পেশ করেন।

এ ছাড়াও ডিজিটাল কনটেইনের মাধ্যমে গ্রাম আদালতের নানা দিকসহ অগ্রগতি উপস্থাপনা করেন এএইচএম আকরাম হোসেন ।

প্রসঙ্গত, চাঁদপুরে ২০১৭ সাল থেকে ২০২১ জানুয়ারি পর্যন্ত ২৪ ইউনিয়নে নিস্পত্তি মামলার সংখ্যার ৯,৪৫৫ টি,সিদ্ধান্ত বাস্তবায়িত হয় ৬,৭৫৯টি , চলমান মামলার সংখ্যা ১১৩টি, ৫ কোটি ২১ লাখ ৫১ হাজার টাকা এবং ভিডিও ক্লিপের মাধ্যমে ক্ষতিপ‚রণ আদায় করা হয়েছে বলে জানানো হয় ।

www.bbcsangbad24.com

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here