ফেব্রুয়ারী,১১,২০২১

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি: 

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ি উপজেলার পাইকপাড়া গ্রামের শ্রী শ্রী রামকৃষ্ণ সেবাআশ্রম ও দেবমন্দিরের জায়গা জবরদখল করে একটি প্রভাবশালী মহল স্কুলের নামে অডিটরিয়াম ভবন নিমার্ণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় ওই মন্দিরের সেবায়েত সুনীল চন্দ্র মন্ডলসহ তার পরিবারকে নানা রকম হুমকি-ধমকি দিচ্ছে প্রভাবশালী মহলটি।এদিকে এ ঘটনার প্রতিবাদে গত ৮ ফের্রুয়ারি সোমবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর রুনি মিলানায়তনে এ সংবাদ সম্মেলন করেছে মন্দির কমিটি।

জানা গেছে,মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ি উপজেলার আব্দুল্লাপুর ইউনিয়নের পাকইপাড়া গ্রামে ২৯ শতাংশ নিজস্ব সম্পত্তিতে এই শ্রী শ্রী রামকৃষ্ণ সেবাআশ্রম ও দেবমন্দিরটি স্থাপিত।এটি ১৬৪২ খ্রিষ্টাব্দে নির্মিত হয়। এ মন্দিরটি বাংলাদেশের ৫২তম মন্দির ও মুন্সীগঞ্জ জেলার ৩য় তম মন্দির।এই মন্দিরের জায়গার দুটি টিনের ঘরে এক সময় রামকৃষ্ণ পরমাংশের পূজা ও দুর্গা পুজাও হতো।আর এদিকে মন্দিরের ১২ শতাংশ জায়গা জবরদখল করে ২০১২ সালে পাকইপাড়া ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ একটি অডিটরিয়াম ভবন নির্মাণ করেন।পাশাপাশি মন্দিরের পুরো জায়গা দখলের পায়তারা করছে। অপরদিকে সেবায়েত সুনীল চন্দ্র মন্ডলের পৈত্রিক সম্পত্তি ৪৯ শতাংশ থেকে ২৫ শতাংশ জায়গায় জবরদখল করে এ স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি ভবন নিমার্ণ করছে। মন্দির ও সেবায়েতের পৈত্রিক সম্পত্তি জবরদখল করার প্রতিবাদ করলে সেবায়েত সুনীল চন্দ্র মন্ডলসহ তার পরিবারকে বিভিন্ন সময় মারধর করে ওই প্রভাবশালী মহলের লোকজনেরা।

এদিকে আরো জানা গেছে,২০১৮ সালের মে মাসে বাংলাদেশ সরকারের ধর্ম মন্ত্রণালয়ের হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের তালিকাভূক্ত হয় এ সেবাআশ্রম ও দেবমন্দিরটি। যার ট্রাস্টির নাম্বার-১১১০৩/ মুন্সীগঞ্জ টঙ্গীবাড়ি/ ৫২। অথচ এ দেবোত্তর সম্পত্তির জায়গা দখল করে সেখানে কীভাবে অডিটরিয়াম ভবন নিমার্ণ করলো পাকইপাড়া ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এলাকাবাসীর মধ্যে এমন প্রশ্ন দেখা দিয়েছে?

এদিকে পাকইপাড়া ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে মন্দির ও সুনীল চন্দ্র মন্ডলের পৈত্রিক জায়গা দখলের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন মন্দির কমিটি। গত ৮ ফের্রুয়ারি সোমবার বেলা ১১টার দিকে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর রুনি মিলানায়তনে এ সংবাদ সম্মেলন করা হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন শ্রী শ্রী রামকৃষ্ণ দেব মন্দির ও সেবাশ্রমের সভাপতি সুনীল চন্দ্র মন্ডল,শ্যামল মন্ডল,বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু মহাজোটের সিনিয়র সহ-সভাপতি প্রদীপ কুমার পাল, কেন্দ্রীয় নেতা শ্রী নরেশ হালদার,বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু ছাত্র মাহাজোটের সভাপতি শ্রী সাজেন কৃষ্ণ বল,হিউম্যান ফিল্যানথ্রপী সোসাইটি মুন্সীগঞ্জ সদর থানার সভাপতি লিটন তালুকদার প্রমূখ।

সংবাদ সম্মেলনে মন্দির কমিটির লোকজন অভিযোগ করে বলেন,বংশ পরমপরায় শ্রী শ্রী রামকৃ দেব মন্দির ও সেবাশ্রমের সেবায়েত এর দায়িত্ব পালন করে আসছে এবং এটি বাংলাদেশ সরকারের ধর্মমন্ত্রনালয়ের তালিকাভূক্ত মন্দির।কাগজপত্র অনুযায়ী এ মন্দিরের নামে ২৯ শতাংশ জমি রেকডৃভুক্ত করা হয়েছে।তারা বলেন,কিন্তু কিছু ভূমিদস্যু মন্দিরের জমি দখল করে স্কুলের পর্যাপ্ত জমি থাকার পরেও জবরদখল করে অডিটরিয়াম ভবন নির্মাণ করে।আমরা তাতে বাধা প্রদান করলে বিভিন্ন ধরনের হুমকি দেয় ও মারধর করে।উক্ত অভিযোগ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়সহ সরকারের বিভিন্ন প্রশাসনিক দপ্তরে প্রেরণ করা হয়েছে। কিন্ত এ বিষয়ে কোনো জায়গা থেকে আজ পর্যন্ত এর কোনো সুরহা পাওয়া যায়নি।মন্দির কমিটির লোকজন এ বিষয়টি প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সংবাদ সম্মেলনে।

www.bbcsangbad24.com

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here