মার্চ,০৬,২০২১

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি:

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ীতে ইউপি সদস্য চাচার রাম দায়ের কুপে ভাতিজার হাত বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

জানাগেছে, উপজেলার বলই গ্রামের শফিউদ্দন সেখের ছেলে আউটশাহী ইউপি সদস্য শিপন মেম্বার (৪৫) এর সাথে তার ভাই সাত্তার সেখ গংদের সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ জমিজামা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিলো।

শুক্রবার (৫ মার্চ) রাতে পুকুরে মাছ ধরা নিয়ে দুপক্ষ ফের সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। এ সময় চাচা শিপন মেম্বার রামদা দিয়ে কোপ দিলে ভাতিজা রমজান (২৩) এর বাম হাতের ডানা বরাবর ঝুলে যায়।

পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে টঙ্গিবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করে। পরে তার হাতটি কেটে শরীর হতে বিচ্ছিন্ন করে ফেলে চিকিৎসক ।

প্রায় ৩ মাস আগে বলই গ্রামের মুদি ব্যবসায়ী ইমরান সেখের বাড়ির গাছ কাটা নিয়ে তর্কবিতর্কের জের ধরে শিপন মেম্বার ছুরি দিয়ে কুপিয়ে ইমরান সেখকে পেটে, বুকে একাধিক আঘাত করে ইমরান সেখের নাড়িভুঁড়ি বের করে ফেলে। সেই ঘটনায় পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করলে দির্ঘদিন জেল খেটে জামিনে বের হয় শিপন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কতিপয় ব্যাক্তি জানান, শিপন আগে মাদকের ব্যবসা করতো। সে উদ শৃঙ্খল জীবন যাপন করে। তার কাছে অনেক ধরনের দেশীয় অস্ত্র রয়েছে।

এ ব্যাপারে শিপনের মোঠো ফোনে ফোন করে তার নাম্বার বন্ধ পাওয়া গেছে।

এ ব্যাপারে টঙ্গিবাড়ী থানা ওসি হারুন অর রশিদ জানান,শুক্রবার রাত ১২টার দিকে মৌখিক অভিযোগের প্রক্ষিতে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়। আহত যুবককে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। লিখিত অভিযোগ দায়েরের পক্রিয়া চলছে।

www.bbcsangbad24.com