মার্চ ১২, ২০২১,

রাজবাড়ী প্রতিনিধি 

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার নারুয়া ইউনিয়নের বিলহিজলী গ্রামে চুরির অভিযোগ এনে যুবককে ঘুম থেকে ডেকে তুলে নিয়ে নির্মম নির্যাতন চালিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ওই যুবককে ধরে নিতে বাধা দেওয়ায় তার বাবা ও মাকেও মারধোর করেছে বলে অভিযোগে উল্লেখ। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগীর মা।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ৬ মার্চ দিবাগত রাতে পাশ্ববর্তী রেজাউল ইসলাম ওরফে রেজার বাড়িতে কে বা কাহারা চুরির ঘটনা ঘটায়। গত ৭ মার্চ রেজাউল, জিয়া, ময়েন উদ্দিনসহ তাদের লোকজন দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে আমার বাড়িতে এসে হামলা করে। আমার ছেলে অচিন্ত কুমার মন্ডল (২৫) কে ঘুমন্ত অবস্থায় ডেকে তাকে চুরির অপবাদ দিয়ে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে যায়। আমি ও আমার স্বামী বাধা দিলে কিলঘুষি, লাথি মেরে মাটিতে ফেলে দিয়ে তাদের হাতে থাকা কাঠের বাটাম দিয়ে বেধড়ক মারধর করে। এরপর আমার ছেলেকে নিয়ে যায়। পরে আমার ছেলেকে রেজা তার লিচু বাগানে নিয়ে লোহার রড, কাঠের বাটাম, হাতুড়ি দিয়ে আমার ছেলেকে গাছের সাথে বেধে অমানবিকভাবে শারীরিক নিযার্তন করে। আমার ছেলে বর্তমানে মৃত্যু প্রায়। পরে মারাত্বক আহত অবস্থায় বালিয়াকান্দি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার অবস্থার অবনতি হলে মঙ্গলবার সকালে তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয় বলে অভিযোগে উল্লেখ।

ভুক্তভোগীর মা অভিযোগকারী নমিতা মন্ডল বলেন, মারধোরে ছেলের পায়ের আঙুল ভেঙে গেছে। শরীরের বিভিন্ন স্থানে রয়েছে অসংখ্য ক্ষতের চিহৃ। আমার ছেলে যদি চুরি করে, থানায় দিতো, এর জন্য আইন আছে। আমি সঠিক বিচার দাবি করছি।

অভিযুক্ত রেজাউল ইসলাম রেজা বলেন, অচিন্ত মন্ডল একজন চিহিৃত চোর। সে আমার বাড়ি থেকে চুরি করেছে। স্থানীয় লোকজন তাকে গণধোলাই দিয়েছে।

বালিয়াকান্দি থানার অফিসার ইনচার্জ তারিকুজ্জামান বলেন, এ বিষয়ে মামালা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তার অভিযান অব্যাহত আছে।

www.bbcsangbad24.com