মার্চ,২৫,২০২১

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি:

টঙ্গিবাড়ী উপজেলার টঙ্গিবাড়ী গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা ভবনের সামনে মঙ্গলবার বিকালে শশুর বাড়ির লোকজনের হামলায় জামাই গুরুতর আহত হয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় জামাই দ্বীণ ইসলামকে উদ্ধার করে টঙ্গিবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে নিয়ে গেলেে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করেন। গুরুতর আহত অবস্থায় সে এখোন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

জানাগেছে, উপজেলার টঙ্গিবাড়ী গ্রামের কাদের মিয়ার ছেলে দ্বীণ ইসলাম এর সাথে তার স্ত্রী রজনী বেগমের দির্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছে। বিরোধের জের ধরে রজনীর বাবা সামশূল হক ভাড়াটিয়া ৬/৭ জন সন্ত্রাসী নিয়ে জামাই দ্বীন ইসলাম এর বাড়ির সামনে দোকানে এসে দ্বীন ইসলামকে পেয়ে তার উপর হামলা চালান বলে জানান দ্বীন ইসলামের ভাই আলামিন। এ সময় তাকে রড়, কাঠের দাসা দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর জখম করেন।

এলাকাবাসী দ্বীন ইসলাম রক্ষা করতে এগিয়ে আসলে শশুড় ও ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে টঙ্গিবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্ররণ করেন।

এ ব্যাপারে আহতের মা ফাতেমা বেগম বাদী হয়ে
টঙ্গিবাড়ী থানায় অভিযোগ দায়ের দায়ের করেছেন।

তবে এ ব্যাপারে অভিযুক্ত শশুর সামশূল হক জানান, আমি আমার জামাই বাড়িতে জামাই ও আমার মেয়ের বিরোধ সম্পর্কে জানতে এবং আমার মেয়ের ভোটার আইডি কার্ড আনতে গিয়েছিলাম।কিন্তু আমার জামাই ও তার লোকজন আমাকে, আমার স্ত্রী, বোন, মেয়েকে মেরে গুরুতর আহত করেছে।

টঙ্গিবাড়ী থানা এসআই মিজান জানান, ফাতেমা বেগম বাদী হয়ে ৩ জনকে আসামী করে একটি অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

www.bbcsangbad24.com