এপ্রিল ০৫, ২০২১

বিবিসি সংবাদ ডেস্ক:

রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে স্থায়ীভাবে দমকা ও ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি ও বজ্রবৃষ্টি বয়ে গেছে। রোববার (৪ এপ্রিল) সন্ধ্যার পর শুরু হওয়া এই তাণ্ডবে ৩ জেলায় ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন আরও অনেকে। প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদনে বিস্তারিত পড়ুন-

গাইবান্ধা প্রতিনিধি: গাইবান্ধা সদর, পলাশবাড়ী, সুন্দরগঞ্জ ও ফুলছড়ি উপজেলায় কালবৈশাখী ঝড়ে আট জন নিহত হয়েছেন। এরমধ্যে সদরের মালিবাড়ি ও বাদিয়াখালি ইউনিয়নে দুই জন, ফুলছড়িতে দুই জন, পলাশবাড়ীতে তিন জন এবং সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় এক জন।

রোববার (৪ এপ্রিল) দিনগত রাত ৯টার দিকে গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের ডেপুটি কালেক্টর নেজারত (এনডিসি) এসএম ফয়েজ গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহতদের মধ্যে গাইবান্ধা সদর উপজেলার মালিবাড়ী ইউনিয়নের ঢনঢনিপাড়া গ্রামের মিঠু মিয়ার স্ত্রী সাহারা বেগম (৪১), পলাশবাড়ী উপজেলার ডাকেরপাড়া গ্রামের ইউনুস আলীর স্ত্রী জাহানারা বেগম (৫০), মোস্তফাপুর গ্রামের আব্বাস আলীর ছেলে গোফ্ফার (৪২), মনোহরপুর ইউনিয়নের কুমেদপুর গ্রামের মমতা বেগম (৫৫), সুন্দরগঞ্জ উপজেলার কিশামত হলদিয়া গ্রামের সোলেমান আলীর স্ত্রী ময়না বেগম (৪০), ফুলছড়ি উপজেলার কাতলামারী গ্রামের বিটুল মিয়ার স্ত্রী শিমুলী বেগম (২৫), ফুলছড়ি উপজেলার হাফেজ উদ্দীনের নামে জানা গেছে।

ফরিদপুর প্রতিনিধি: ফরিদপুর জেলার আলফাডাঙ্গায় কালবৈশাখী ঝড়ে রোববার (৪ এপ্রিল) সন্ধ্যা সোয়া ৬ টার দিকে গাছচাপা পড়ে মা-মেয়ের করুণ মৃত্যু হয়েছে।

জানা গেছে, ফরিদপুরের মধুখালি উপজেলার বাজিতপুর গ্রামের মো. জাহিদের স্ত্রী হালিমা (২৬) তার এক বছর চার মাস বয়সী শিশু কন্যা আফছানাকে নিয়ে ভ্যানে আলফাডাঙ্গা উপজেলার বানা ইউনিয়নের শিরগ্রাম থেকে তার বাবারবাড়ি একই ইউনিয়নের পাকুড়িয়ায় যাচ্ছিলেন।

সন্ধ্যা ৭টার দিকে কালবৈশাখী ঝড় শুরু হলে টাবনী ঘোষবাড়ির সামনে পৌঁছালে রাস্তার পাশের সজনে গাছের একটি বড় ডাল তাদের উপর ভেঙে পড়ে। এতে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই হালিমার মৃত্যু ঘটে।মারাত্মক আহত অবস্থায় শিশু কন্যা আফছানাকে বোয়ালমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকেও মৃত ঘোষণা করেন।

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: ভেড়ামারা উপজেলায় কালবৈশাখী ঝড়ের তাণ্ডবে নির্মাণাধীন দোকানঘরের উড়ন্ত টিনে গলা কেটে রবিউল ইসলাম (৪০) নামের এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। রোববার সন্ধ্যায় ভেড়ামারা উপজেলার ধরমপুর ইউনিয়নের মহিশাডরা এলাকার দফাদার ফিলিং স্টেশনের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত রবিউল ইসলাম কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার হোগলবাড়িয়া ইউনিয়নের শশিধরপুর এলাকার সাদ মন্ডলের বড় ছেলে। রবিউল পেঁয়াজের ব্যবসা করতেন। তিনি তিন মেয়ে সন্তানের জনক।

www.bbcsangbad24.com