এপ্রিল,০৫,২০২১

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি: 

১২ মাসের শিশু আরিফাকে নারায়ণগঞ্জ জেলার পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টার হাসপাতালে ডাক্তার দেখাতে নিয়ে গিয়েছিলন বীথি (২৫) ও তার মা পাকিজা বেগম।

রবিবার সন্ধায় তারা নারায়নগঞ্জের শীতলক্ষা নদীতে ডুবে যাওয়া সাবিত আল হাসান লঞ্চের যাত্রী ছিলেন বলে জানান নিখোঁজ বীথির শাশুরী মিনি বেগম ।

রাত ১১টার দিকে মুন্সিগঞ্জ লঞ্চ ঘাটে অধির আগ্রহ নিয়ে আপেক্ষা করছেন মিনু বেগম ও তার বড় ছেলের বৌ রেসমি বেগম। মাঝে মধ্যেই কান্নায় ভেঙ্গে পরছে মিনু বেগম। সে সদর উপজেলার খাসকান্দি রমজানবেগ এলাকার কাজী মিলন বেপারীর স্ত্রী।

মিনু বেগম আমার সংবাদকে জানান, তার নাতনী আরিফার সমস্ত শরীর দাউদ উঠে ছেয়ে গেছে। তাই রবিবার বিকালে তার ছেলের বৌ বীথি ও তার মা পাকিজা বেগম আরিফাকে ডাক্তার দেখাতে নারায়নগঞ্জের পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়ে যায়। পরে লঞ্জ ডুবে যাওয়ার আধঘন্টা আগে তার ছেলের বৌ বিথী তার ছেলে আরিফের মোবাইলে ফোন দিয়ে জানায় তারা লঞ্চে করে আসতাছে। তারপর হতে তাদের কোন খোঁজ পাচ্ছিনা। তার ছেলে আরিফ বৌ বাচ্চার খোজে যেখানে লঞ্চ ডুবেছে সেই স্থানে গেছে বলেও জানান তিনি।

www.bbcsangbad24.com