এপ্রিল,০৭,২০২১

টঙ্গিবাড়ী,মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি:

টঙ্গিবাড়ী উপজেলার ছটফটিয়া গ্রামে জমি দখল নিয়ে দু-পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন মুহুর্তে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। জানাগেছে, উপজেলার ছটফটিয়া গ্রামের মৃত রউফ হালদারের ছেলে মিলন মিয়া গংরা তার মায়ের দেয়া হেবা দলিল  সুত্রে মালিক হয়ে ৯শতাংশ জমি দির্ঘদিন যাবৎ ভোগ দখল করে আসছে।

কিন্তু বর্তমানে ওই একই এলাকার মোফাজ্জল সেখ (৫৮) এবং আওয়াল সেখ (৪০) গংরা ওই সম্পত্তিতে জোড় করে ঘর তুলার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এ নিয়ে ওই এলাকায় দু-পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

ভুক্তভোগী মিলন মিয়া জানান, মোফাজ্জাল সেখ গংরা টিনের চাল বেড়া তৈরী করে প্রস্তুত হয়ে আসছে আমার জমিতে ঘর তুলবো। আমি টঙ্গিবাড়ী থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি। পুলিশ এসে ঘর তুলতে নিষেধ করলেও তার ঘর তোলার পায়তারা করছে।

পরে পুলিশ আমায় আদালতে মামলা দায়ের করতে বললে আমি মামলা দায়ের করতে এসে দেখি করোনার কারনে আদালত বন্ধ রয়েছে। আদালত বন্ধ থাকার কারনে জোর করে তারা আমার জমিতে ঘর তুলতে চাচ্ছে। তাদের আমার জমির পাশেই জমি রয়েছে কিন্তু তাদের জমিতে পুকুর থাকায় তারা আমার ভরট জমি জোর করে দখল করতে চাচ্ছে। এর আগে চেয়ারম্যান সমঝোতা করে দিলেও তারা সমঝোতা মানছেনা।

এ ব্যাপারে মোফাজ্জল সেখ জানান, চেয়ারম্যান একটা সমঝোতা করে দিছিলো। আমরা সেভাবেই খাচ্ছি। নতুন করে ঘর উত্তেলনের বিষয়ে জানতে চাইলে সে বলে ঘর আগেই ছিলো আমরা একটা বারেন্দা তুলতেছি। তাহলেতো আর সমঝোতা রইলোকি জানতে চাইলে সে কোন সদুত্তর দিতে পারে নাই। এ ব্যাপারে স্থাণীয় বেতকা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বাচ্চু শিকদার জানান, বিরোধপূর্ণ জমিটি নিয়ে বিচার শালিশীতে বসলে কাগজ পত্রে দেখা যায় ওই অংশের মালিক মিলন মিয়া গংরা। পরে ওই জমিটি মিলনদের বলেই রায় হয়।

এ ব্যাপারে জানতে টঙ্গিবাড়ী থানা ওসি হারুন অর রশিদ এর মোবাইলে কয়েকবার ফোন দিলে তিনি মোবাইল কেটে দেন।

www.bbcsangbad24.com