মে,২৩,২০২১

এম.রেজোয়ান বাদলঃ

চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ উপজেলার হাজীগঞ্জ বাজারের একটি দোকানে প্লাস্টিকের ডিম পাওয়া গেছে। এ নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে সন্দিহান হয়ে নানান জনের নানা রকম মন্তব্য সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় তুলেছে।

এদিকে আলোচিত ডিমগুলো উদ্ধার করে ইতিমধ্যে এগুলো প্লাস্টিকের ডিম কি না? তা নিশ্চিত হতে রাজধানী ঢাকা মহাখালী জনস্বাস্থ্য পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়েছে।

২২শে মে শনিবার রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাজীগঞ্জ স্বাস্থ্য বিভাগের নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক শামছুল ইসলাম রমিজ।

এর আগে হাজীগঞ্জ বাজার থেকে এক ক্রেতা বেশ কিছু ডিম ক্রয় করে বাসায় নিয়ে যান। সেই ডিমের মধ্যে তিনি ব্যতিক্রম কিছু পরিবর্তন দেখেন। পরিবর্তন লক্ষ্য করে ঐ ব্যক্তি ডিম গুলো দোকানে ফেরত নিয়ে যান। এবং দোকানদারকে এগুলো প্লাস্টিকের ডিম বলে অবহিত করেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আলোচিত এই ডিম ক্রেতা হচ্ছেন হাজীগঞ্জ বাজারের শাহজালাল ইসলামী ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক জসিম উদ্দিন তালুকদার।

তিনি জানান, গত বুধবার পৌর হকার্স মার্কেটের মাইশা স্টোর থেকে ২১টি ডিম ক্রয় করেন। পরে এসব ডিম বাসায় নিয়ে রান্না করতে গেলে ডিমগুলো রাবারের মতো দেখতে পান। তখনই তিনি ডিমগুলো মাইশা স্টোরে ফেরত দেন এবং স্থানীয় প্রশাসনকে অবহিত করেন।

ঘটনা সম্পর্কে ডিম বিক্রেতা মাইশা ষ্টোরের ইব্রাহিম খলিল জানান, আমি নিজে ডিম বানাই না! ডিম আমি অন্যান্য পণ্যের মতোই মোকাম থেকে এনে দোকানে খুচরা বা হালি ধরে বিক্রি করি। আমি এগুলো শাহরাস্তির ওয়ারুক বাজার থেকে মোকাম(ক্রয়) করেছি। এগুলো গরমে হয়তো নষ্ট হয়েছে । তবে প্লাস্টিকের ডিম হবে কিভাবে বুজে আসছে না।

এ ব্যপারে হাজীগঞ্জ উপজেলা নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক শামছুল ইসলাম রমিজ জানান, খবর পেয়ে আমি ওই দোকানে গিয়ে অভিযোগকারীর কাছ থেকে ৩টি ডিম উদ্ধার করেছি। এর মধ্যে একটি ডিম সিলগালা করে দোকানিকে দিয়ে আসি। আর বাকী দুইটি ডিম প্লাস্টিকের কি না তা নিশ্চিত হওয়ার জন্য সংরক্ষণ করে মহাখালী জনস্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠানের পরীক্ষাগারে পাঠিয়েছি। রিপোর্ট আসলে এ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে এবং আইন গত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে হাজীগঞ্জ বাজারে দোকানগুলোতে প্লাস্টিকের ডিম বিক্রি হচ্ছে এমন তথ্য প্রচার হওয়ায় অনেকের মধ্যেই খাদ্য নিরাপত্তা নিয়ে আতঙ্ক ও উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।

www.bbcsangbad24.com