মে,২৪,২০২১

রায়হানুজ্জামান রাসেল, মুন্সীগঞ্জ:

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকার ঘোষিত লকডাউনে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর শিমু‌লিয়া -বাংলাবাজার রটে লঞ্চ চলাচল শুরু হয়েছে।

সোমবার (২৪ মে) ভোর থেকে লঞ্চ চলাচল শুরু হয়। লঞ্চ চলাচল শুরুর পর হতেই ফেরিতে নেই যাত্রীচাপ। ফেরিতে যাত্রী চাপ না থাকায় অনায়াসে পার হতে পারছে যানবাহন। এতে ঘাটে কোন যানবাহনের চাপ নেই। সকাল সাড়ে ১০ টার পর হতে যানবাহনের অপেক্ষায় ঘাটে ভিড়ে আছে ফেরি।
এর আগে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বাড়লে গত ৫ এপ্রিল থেকে লঞ্চ চলাচল বন্ধ রাখে কর্তৃপক্ষ। এদিকে লঞ্চ চলাচল শুরু হওয়ায় স্বস্তি দেখা দিয়েছে যাত্রীদের মধ্যে। সকাল থেকে শিমুলিয়াঘাট হতে বাংলাবাজারের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাচ্ছে একের পর এক লঞ্চ। আবার বাংলাবাজার ঘাট থেকেও লঞ্চ শিমুলিয়াঘাটের দিকে আসছে।

সরকারী ঘোষনা অনুযায়ী অর্ধেক যাত্রী নিয়ে লঞ্চ ছাড়ার কথা থাকলেও অধিকাংশ লঞ্চেই মানছে না। তবে ধারণ ক্ষমতার চেয়ে কিছুটা কম যাত্রী নেয়া হচ্ছে।

লঞ্চ যাত্রী আকতার হোসেন বলেন, লঞ্চ চলাচল শুরু হওয়ায় কম সময়ে আমরা পদ্মা নদী পার হয়ে আমার বাড়ি মাদারীপুরে যেতে পারবো। ঈদের আগে লঞ্চ চললে আমাদের এতো দূর্ভোগ পোহাতে হতোনা।

অপর যাত্রী আপেল মাহমুদ বলেন, ফেরিতে রৌদ্রে দাড়িয়ে পারাপার হতে বেশ কষ্ট হচ্ছিলো আমাদের। লঞ্চ চলাচল শুরু হওয়ায় আমাদের দূর্ভোগ কমেছে।

বিআইডাব্লিউটিএ শিমুলিয়া লঞ্চঘাটের পরিবহন পরিদর্শক মোহাম্মদ সোলেমান বলেন, বর্তমানে শিমুলিয়া ঘাটে ৮৭টি লঞ্চ চলছে। স্বাস্থ্যবিধির বিধিনিষেধ মেনেই লঞ্চগুলো চলাচল করছে।

এ ব্যাপারে মাওয়া ট্রাফিক পুলিশের টিআই হিলাল উদ্দিন বলেন, শিমুলিয়া ঘাটে এখোন কোন যাত্রী ও গাড়ির চাপ নেই। পরিবহনের অপেক্ষায় ঘাটে ভিড়ে আছে ফেরি।

এ ব্যপারে, বিআইডাব্লিউটিসি শিমুলিয়াঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) ফয়সাল আহমেদ বলেন, বর্তমানে নৌরুটে ১৭টি ফেরি চলছে। ফেরিতে কোন যাত্রী গাড়ির চাপ নেই। গাড়ির অপেক্ষায় শিমুলিয়া ঘাটে ভিড়ে আছে ফেরি।

www.bbcsangbad24.com