মে,৩০,২০২১

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি:

মুন্সীগঞ্জে সন্ত্রাসী হামলার স্বীকার হয়ে আহতরা থানায় মামলা করেও আইনী সহায়তা পাচ্ছেনা, প্রতিপক্ষের ভ‚য়া মামলার কারনে প্রকৃত অভিযোগকারী আইনী সহায়তা পাচ্ছেনা , অভিযোগ মামলার বাদীর।
মুন্সীগঞ্জ থানা মামলা নং ৪৪ তারিখ ২৩/৫/২১ ধারা ১৪৩/৪৪৮/৩২৩/৩২৫/৩০৭/৪৭৯/৩৮০/৪২৭/১১৪/৫০৬ পেনাল আইনে।

মামলার বাদীর এজহার নামীয় অভিযোগের আলোকে উল্লেখ্য গত ২২ মে দুপুরে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার রামপাল ইউনিয়ণের দক্ষিন দেওসার গ্রামের মৃত আ: লতিফের বাড়িতে অনাধিকার প্রবেশ করিয়া একদল চিহ্নীত সন্ত্রাসী অতর্কিত হামলা চালিয়ে বাড়ি-ঘর ভাংচুরসহ মালামাল লুটপাট করে । এসময় হামলার স্বীকার হয় বিটু খান । সন্ত্রাসীরা নীলাফুলা জখমসহ বিটু খানের হাত ভেঙ্গে দেয়।

এবিষয়ে অভিযোগকারী বিটু খান বলেন, চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা আমাদের একই এলাকার তারা মিয়ার ছেলে রাজিব শেখ (৩৫) কাদির বেপারীর ছেলে কবির বেপারী (৪০) রুহুল আমিন বেপারী (৪৩) ও আবুল শেখের ছেলে দিপু শেখ (৩০) সহ আরো ৪/৫ জন অজ্ঞাতরা আমার উপর হামলা করে আমার হাত ভেঙ্গে দিয়েছে। আমার স্ত্রী, সন্তানদের মারধর করে ঘরে থাকা নগদ টাকা পয়সা লুটপাট করে নিয়ে যায় এবং আইনী সহযোগিতা নিলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে চলে যায়।

তিনি আরো বলেন, এক ঘন্টার ব্যবধানে আমার ছোট ভাই নান্টুর ধলাগাও বাজারে আপন ষ্টোরে হামলা করে তাকে মারধর করে মালামাল লুটপাটসহ নগদ দেড়লক্ষ টাকা নিয়ে যায়।
আমি প্রাথমিক হাতিমারা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশকে জানালে তারা সরেজমিনে ঘটনার সত্যতা যাচাইসহ তদন্ত করে গেছেন।

পরবর্তিতে ২৩ মে মুন্সীগঞ্জ সদর থানায় ৪ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন বিটু খান। একই দিনে আসামী পক্ষ থানায় এসে হাজির হয়ে ১ম পক্ষের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন বিবাদীপক্ষ । অথচ ১ম পক্ষের মামলার আসামীরা থানায় আসার পর তাদের আটক না করে পুলিশ তাদের পক্ষে মামলা নিয়েছে। এতে আইনী সহায়তা থেকে বঞ্চিত এমন অভিযোগ প্রকৃত অভিযোগকারী বিটু খানের।

এবিষয়ে মুন্সীগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মো: আবু বকর ছিদ্দিক বলেন, অভিযোগ তদন্তক্রমে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

www.bbcsangbad24.com