জুন,২৫,২০২১

আবু হানিফ রানা:

মুন্সীগঞ্জ জেলায় চলছে কঠোর লকডাউনের ৪র্থ দিন। লকডাউন বাস্তবায়নে কঠোর অবস্থানে রয়েছে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন। জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে চলছে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান।

গুরুত্বপূর্ণ স্থানে রয়েছে পুলিশের চেক পোস্ট। লকডাউনের প্রথম দিন থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে স্বাস্থ্য বিধি না মানার অপরাধে অনেককেই জরিমানা করা হয়েছে।

২৫ জুন শুক্রবার সকাল থেকেই মুন্সীগঞ্জ শহরে ছোট বড় গাড়ী চলাচল বন্ধ রয়েছে শুধুমাত্র জরুরী সেবা ছাড়া সকল প্রকার যানচলাচল বন্ধ রেখেছে প্রশাসন । গ্রাম অঞ্চলেও স্বস্থ‌্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ দিচ্ছে প্রশাসন।

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী মেজিস্ট্রেট (ইউ এন ও) হামিদুর রহমান বলেন, সকাল থেকেই আমরা মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করছি গুরর্তপূর্ণ স্থানে বিশেষ করে শহরের কাচারী চত্বর,থানাপুল চত্বর,পুরাতন বাসষ্ট‌্যান্ড,মুক্তারপুর ব্রীজ মোড়ে,সিপাহীপাড়া চেীরাস্তাসহ বিভিন্ন পয়েন্ট।

এদিকে গেল ২৪ ঘন্টায় ৬২ জনের নমুনা পরীক্ষায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৬ জন। এই হিসেবে সংক্রমণের হার দাঁড়িয়েছে ১২ শতাংশ। তবে এই সময়ে মুন্সীগঞ্জে করোনা আক্রান্ত হয়ে কেউ মারা যায়নি। এই নিয়ে মুন্সীগঞ্জে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাড়িয়েছে ৫ হাজার ৯০৯ জনে। মারা গেছেন ৭১ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৫ হাজার ৮০৪ জন। বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল ও বাড়িতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৩৪ জন।

শুক্রবার (২৫ জুন) সিভিল সার্জন ডা. আবুল কালাম আজাদ এসব তথ্য জানিয়েছেন।

অন্যদিকে লকডাউনের ৪র্থ দিন শুক্রবার (২৫ জুন) সকাল থেকে মুন্সীগঞ্জের বেশিরভাগ সড়ক ও জনবহুল স্থান ফাঁকা ছিল। ঔষধ ও নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান ছাড়া সব দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। তবে জেলায় লকডাউন কঠোরভাবে পালন করা হচ্ছে, যানবাহন চলাচল না করায় মানুষকে বাধ্য হয়ে হেটে গন্তব্যে যেতে দেখা গেছে।

সিভিল সার্জন ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, ১লা জানুয়ারী থেকে মুন্সীগঞ্জে করোনা আক্রান্ত ২ জন মারা গেছে। চলমান লকডাউনে করোনা আক্রান্ত হয়ে কেউ মারা যায়নি। আক্রান্তের হার অনেকাংশে কম। লকডাউন চলছে। স্বাস্থ্য বিধি নিশ্চিত করতে আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছি।

মুন্সীগঞ্জ জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন দেব বলেন, লকডাউন বাস্তবায়নে আমরা সব ধরনের চেষ্টা করছি। জেলার বিভিন্ন প্রবেশদ্বারসহ সকল স্থানে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। চিকিৎসা, খাদ্য পণ্যে ও জরুরী প্রয়োজন ছাড়া কাউকে বাইরে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। সকল ধরনের গণপরিবহন বন্ধ হয় সেই লক্ষে আমাদের চেষ্টা অব‌্যাহত রয়েছে।। এই অবস্থায় সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঘরে থাকার আহ্বান জানান তিনি।

মুন্সীগঞ্জ জেলা অতিরিক্ত ম‌্যাজিস্ট্রেট শীলু রায় বলেন, করোনা সংক্রমণের মোটামুটি বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকার সারদেশে লকডাউন ঘোষণা করেছে। লকডাউন বাস্তবায়নে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হচ্ছে। প্রথমদিন থেকে জেলার ৬ উপজেলায় অনেক কে জরিমানা করা হয়েছে। সকলকে মাস্ক পরিধানের জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। মাস্ক ছাড়া জরুরী কাজে বাইরে বের হওয়ার জন‌্য নিষেধ করা হচ্ছে। দরিদ্র মানুষের মাঝে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাস্ক বিতরণ করা হচ্ছে। মানুষকে সচেতন করতে এবং ঘরে থাকতে মাইকিং চলছে। লকডাউন বাস্তবায়নে আমাদের প্রশাসন মাঠে কাজ করছে। সকলকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানা তিনি।

www.bbcsangbad24.com