জুন,৩০,২০২১

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি:

মুন্সীগঞ্জের টংগীবাড়ি উপজেলার সোনারং টংগীবাড়ি ইউনিয়নের সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার (১,২,৩,) নং ওয়ার্ড হেনা বেগম বাদী হয়ে ৫জন কে আসামী করে মুন্সীগঞ্জের একটি মানবাধিকার সংস্থায় মামলা দায়ের করেন।
এজহারের আলোকে জানা যায়, ঐ মহিলা মেম্বার হেনা বেগমের নিজ বাড়িতে পাশ্ববর্তি ঘরে দীর্ঘদিন যাবৎ একটি মাদকের স্পট চালিয়ে আসছে আলী আকবর মজুমদার আর ঐ মাদকের নেতৃত্ব দিচ্ছে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি লিটন শেখ ও তার স্ত্রী সাবেক টংগীবাড়ি পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এমিলী পারভীন ।

বাদীনি এজহারে আরো উল্লেখ করেন যে গত ২৩ জুন সকালে মহিলা মেম্বার হেনা বেগম স্থানীয় জনগন নিয়ে মাদকের আখড়ায় হামলা করে আস্তানাটি ভেঙ্গে দেয়। এরই জেরধরে এখই দিনের বিকালে কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী আলী আকবরের নেতৃত্বে সঙ্গীয় বাহীনি নিয়ে তার গতিরোধ করে অতর্কিত হামলা চালিয়ে তাকে বেদম প্রহার করে। এসময় মহিলা মেম্বারের ডান চোখে আঘাত করায় চোখের নিচের অংশ কেটে যায় সেখানে বেশ কয়েকটি সেলাই লাগে এবং বর্তমানে আহত অবস্থায় সে হাসপাতালে অবস্থান করছেন।

অন্যদিকে ঘটনার দিন থেকে মহিলা মেম্বার হেনার স্বামীকে খোঁজে পাচ্ছেনা , উল্লেখ রয়েছে যে ঘটনার দিন বিকালে সোনারং টংগীবাড়ি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি লিটন হেনার স্বামী মোতালেব মজুমদারকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায় আর সেই থেকে তাকে খোঁজে পাওয়া যাচ্ছেনা।
এবিষয়ে মহিলা মেম্বার হেনা বলেন, আমি একজন জনপ্রতিনিধি ও মহিলা আওয়ামীলীগের নেত্রী। বিভিন্ন সময়ে দলীয় কার্যক্রমে অংশগ্রহন করতে হয়। মিটিং মিছিলে যাওয়ার পথে আওয়ামীলীগের সভাপতি লিটন আমার মহিলা কর্মীদের রাস্তায় গতিরোধ করে কুপ্রস্তাব দেয়। তার ডিস্টাবের কারনে রাস্তাঘাটে চলাচলের নানা রকম বিঘ্ন ঘটে।

লিটন শেখ ও তার স্ত্রী এমিলী পারভীন আমাকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রাণ নাশের হুমকি প্রদান করে আসছে। যে কোন সময় আমার পরিবারসহ আমাদের প্রাণ নাশ ঘটতে পারে । শুধু তাই নয় সে আমাদের পারিবারিক ভাবে কলহ তৈরী করে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করে আসছে। আমার ছেলেদের রাস্তাঘাটে হুমকি ধমকি দিচ্ছে যে আমাকে ও আমার পরিবারকে এলাকা ছাড়া করবে এমন কথা বলে। তাদের দ্বারা যে কোন সময় আমার ও পরিবারের লোকজনের প্রাণনাশের ঘটনা ঘটতে পারে তাই আমি জীবনের নিরাপত্তা ও ন্যায় বিচারের দাবীতে মানবাধিকারে মামলা দায়ের করেছি।

www.bbcsangbad24.com