জুন,০১,২০২১

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি:

মুন্সীগঞ্জের ধলেশ্বরী নদীতে ক্রুদের জিম্মি করে দুইটি লাইটার জাহাজে নৌ-ডাকাতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার রাত আড়াইটার দিকে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার মুক্তারপুর এলাকা সংলগ্ন নদীতে এ নৌ-ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এ সময় এক জাহাজের মাস্টারকে মারধর ও দুটি জাহাজ থেকে ৪০টি মোবাইল ফোনসহ অর্ধলক্ষাধিক টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায় ডাকাত দল।

এদিকে ডাকাতির পর ডাকাত সদস্যরা পালিয়ে যাওয়া কাউকে আটক করা যায়নি বলে জানায় মুক্তারপুর নৌ-পুলিশ। জাহাজ ক্রুদের বরাত দিয়ে মুক্তারপুর নৌপুলিশ জানায়, মধ্যরাতে একটি স্পীডবোট দিয়ে ১৮/২০জনের ডাকাত দল মুক্তারপুর এলাকা সংলগ্ন নদীতে নোঙর করা দুটি জাহাজে আগ্নেয় ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এর মধ্যে এমভি ইয়াসিন আরাফাত-২ নামের জাহাজের মাস্টারকে মারধর করে জাহাজে থাকা ৪০হাজার টাকা ও ক্রুদের ১৯টি মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়।

পরে অপর আরেকটি জাহাজ এমভি সেভেন সার্কেল-৩০ এ হামলা চালিয়ে ১৪জন ক্রুকে জিমি করে ২১টি মোবাইল ফোন ও ২০হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। ক্রুদের ফোন নিয়ে যাওয়া তাৎক্ষণিক কাউকে বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করতে না পারায় এরমধ্যে ডাকাতদল পালিয়ে যায়। এবিষয়ে মুক্তারপুর নৌ-পুলিশের উপ-পরিদর্শক আল-আমিন জানান, ডাকাতির খবর পেয়ে ডাকাতদের ধরতে রাতে নদীতে অভিযান চালানো হয়। তবে তারা পালিয়ে যাওয়ায় কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। ডাকাতদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে।

এ বিষয়ে মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু বকর সিদ্দিক বলেন, এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ করতে এসেছিলো। তবে সীমানা নিয়ে জটিলতা থাকায় তাদেরকে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও থানায় অভিযোগ দায়েরের জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

www.bbcsangbad24.com