জুলা্ই,১৯,২০২১

কাজী নজরুল ইসলাম, চাঁদপুর: 

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের (জিইডি) সদ্য সাবেক সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলম চাঁদপুরের কৃতিসন্তান শপথ গ্রহণ করেছেন। ড. শামসুল আলম অতি স্বজন, বিনয়ী এবং দেশ সেরা একজন অর্থনীতিবিদ। ওই গুণিব্যক্তিটি সরকারের সরাসরি প্রতিমন্ত্রী নিয়োগ পেয়েছেন। তাঁর শপথের মধ্য দিয়ে প্রতিমন্ত্রীর সংখ্যা দাঁড়ালো ২০ জনে। সংসদ সদস্য না হওয়ায় তিনি মন্ত্রিসভায় জায়গা পেয়েছেন টেকনোক্র্যাট হিসেবে।

গত ১৮ জুলাই রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ তাকে শপথবাক্য পাঠ করান। শপথগ্রহণের অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।
প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার পর শামসুল আলম পৃথকভাবে গোপনীয়তার শপথও নেন। সীমিত পরিসরে আয়োজিত এ শপথ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রীসভার জৈষ্ঠ্যতম সদস্য মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, আইন মন্ত্রী আনিছুল হক, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, কৃষি মন্ত্রী আবদুর রাজ্জাক, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপুমণি, স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো: তাজুল ইসলাম এবং পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান। তবে অনুপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি ২০০৯ সালে পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য হিসেবে যোগ দেন। ২০২১সালের ১ জুলাই পর্যন্ত ড. শামসুল আলমের চাকরীর মেয়াদ বাড়িয়েছিল সরকার। দীর্ঘ ১২ বছর ধরে জিইডিতে চুক্তিভিত্তিক দায়িত্ব পালন করেছেন। গত ৩০ জুন তার মেয়াদ শেষ হয়। ড. শামসুল আলমের হাত ধরে তৈরী হয়েছে বেশ কয়েকটি উন্নয়ন পরিকল্পনা। যেগুলো এখনও চলমান। ৬ষ্ঠ পঞ্চ বার্ষিক ও ৭ম পঞ্চ বার্ষিক পরিকল্পনা প্রণিত হয়েছে। সরকারের নির্বাচনী ইশতেহারের আলোকে ২য় দারিদ্র বিমোচন, কৌশলপত্র (২০০৯-২০১১) সংশোধন ও পূর্ণবিন্যাস করে দিন বদলের পদক্ষেপ ২০১১ সাল পর্যন্ত বাস্তবায়িত হয়েছে। ২০১১ এর আলোকে বাংলাদেশের প্রথম পরিপেক্ষিত পরিকল্পনা ২০১০-২০১১ তৈরী করে জিইডি। এছাড়া প্রথম বারের মতো বাংলাদেশের টেকসই উন্নয়ন কৌশল পত্র, সামাজিক সুরক্ষা কৌশলপত্র প্রণিত হয়েছে তার সময়ে।

বর্তমানে ১০০ বছরের বদ্বীপ পরিকল্পনা প্রণয়নের কাজ শেষের পথে। এগুলোর বাইরে ও তার দায়িত্ব পালন কালে এমডিজি অর্জন বিষয়ক ১৫ টি গ্রন্থ। তার তত্তাবধায়ক ও সম্পাদনায় ৬৩টি মূল্যায়ন প্রতিবেদন, অধ্যয়ন ও গবেষনা গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। অর্থনীতিতে বিশেষ অবদানের জন্য গত বছর বাংলাদেশ সরকার শামসুল আলমকে একুশে পদক প্রদান করে। এর আগে ২০১৮ সালে সাউথ এশিয়ান নেটওয়ার্ক ফর ইকোনমিক মডিউলিং তাকে “ইকোনমিক অব ইনফ্লুয়েন্স অ্যাওয়ার্ড” দিয়ে ভূষিত করে।

www.bbcsangbad24.com