আগস্ট,০৪,২০২১

কাজী নজরুল ইসলাম,চাঁদপুরঃ-

চাঁদপুরে লিকুইড অক্সিজেন প্ল্যান্টের কাজ শুরু হয়েছে। আজ ৪ আগষ্ট বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টায় আনুষ্ঠানিকভাবে ভার্চুয়ালী এ প্লান্টের শুভ উদ্বোধন করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি। দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর বহুল প্রত্যাশিত লিকুইড অক্সিজেন এসে পৌঁছে সোমবার রাতে। ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সরকারি জেনারেল হাসপাতাল চত্বরে স্থাপিত প্রায় দুই ঘন্টাব্যাপী অক্সিজেন লোড করা হয় এ প্লান্টে। এরপর শুরু হয়েছে পরীক্ষামূলক কার্যক্রম (ট্রায়াল)।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সারাদিন অক্সিজেন সরবরাহের ট্রায়াল চলছিল। এ প্লান্ট থেকে অক্সিজেনও সরবরাহ করা হয়েছে হাসপাতালে। উদ্বোধনের আগেই পরীক্ষামূলক কার্যক্রমের সময় থেকে সদর হাসপাতালের অনেক রোগী সেখান থেকে অক্সিজেন পাওয়া শুরু করেছেন। চাঁদপুরে এক সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে অক্সিজেনের জন্য হাহাকার চলাকালে প্লান্ট চালুর খবরে জেলাবাসীর মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসেছে।
গত সোমবার চট্টগ্রাম থেকে জরুরী তরল গ্যাস সরবরাহের একটি গাড়িযোগে সদর হাসপাতালে স্থাপনকৃত অক্সিজেন প্লান্টের সাড়ে ৮ হাজার ধারণক্ষমতার ট্যাংকিতে সাড়ে ৩ হাজার মিলিলিটার লিকুইড অক্সিজেন লোড করেন স্পেক্ট্রা অক্সিজেন লিমিটেড কোম্পানীর কর্মীরা।

স্পেক্ট্রা অক্সিজেন লিমিটেড কোম্পানীর কর্মীরা জানান, লিকুইড অক্সিজেন লোড করার পর সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে ট্রায়ালের সময় থেকেই সদর হাসপাতালের রোগীরা লিকুইড অক্সিজেন পাওয়া শুরু করবে। লিকুইড অক্সিজেন থেকে কম্প্রেসারের মাধ্যমে রূপান্তরিত অক্সিজেন রোগীদের সরবরাহ করা হচ্ছে। প্রয়োজন অনুযায়ী নিয়মিতভাবে এই প্লান্টে লিকুইড অক্সিজেন লোড করা হবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা সদর হাসপাতালের তত্ত¡াবধায়ক ডা. হাবিব-উল-করিম, সিভিল সার্জন ডা. মোঃ সাখাওয়াত উল্লাহ, জেলা সদর হাসপাতালের করোনা বিষয়ক ফোকালপার্সন ডা. সুজাউদ্দৌলা রুবেল, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মজিবুর রহমান ভূঁইয়া, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট জাহিদুল ইসলাম রোমান, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী বেপারী, জেলা সরকারি জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডাক্তার সুজাউদ্দৌলা রুবেল, আবাসিক সার্জন ডাক্তার মাহমুদুন্নবী মাসুম, শিক্ষামন্ত্রী ডাক্তার দীপু মনি এমপি,র চাঁদপুর প্রতিনিধি অ্যাডভোকেট সাইফুদ্দিন বাবু, জেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহŸায়ক মাহফুজুর রহমান টুটুল, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ দিদারুল আলম প্রমুখ।

জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোঃ সাখাওয়াত উল্লাহ জানান, স্পেক্ট্রা অক্সিজেন কোম্পানির লোকজন টাংকিতে লিকুইড অক্সিজেন ভর্তি করছেন। এখন তারা পরীক্ষামূলকভাবে পর্যবেক্ষণ করছেন। আর এই পর্যবেক্ষণের মাঝেও কিছু রোগী অক্সিজেন সেবা পেতে পারেন। লিকুইড লোড করলেই সবাইকে অক্সিজেন দেয়া সম্ভব হবে না। অক্সিজেন মিটারসহ ভিতরে আরো কিছু আনুষঙ্গিক কাজ বাকী রয়েছে। মিটার আসলে এবং লাইন ক্লিয়ারসহ সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে সব রোগীরা লিকুইড অক্সিজেন পাবে। তবে ট্রায়াল অবস্থায় কিছু রোগী প্লান্টের অক্সিজেন সেবা পেয়েছে।

www.bbcsangbad24.com