আগস্ট,১৮,২০২১

মো: মনির হোসেন: 

তালেবানগন রাষ্ট্র পরিচালনায় যে থিওরী জনগণের মাঝে সো করবে তাতে মুক্ত মনা, কি নারী স্বাধীনতা,বিনোদন কিছুই জনগন নিজের মত করে উপভোগ করতে পারবেনা।

অপরদিকে কারনে, অকারনে বন্ধুকের গুলিতো আছেই।অবশ‍্য ইদানিং তালেবান গোষ্ঠী সংবাদ সম্মেলন করে বলছে রাষ্ট্র পরিচালনায় তারা আন্তর্জাতিক বিশ্বের সাথে যথেষ্ট মিলামিল রেখে সংবিধান কি পরাষ্ট্রনীতি প্রনয়ন করবে।মননে মৌলবাদী হয়ে কিভাবে তারা আধুনিক বিশ্বের সাথে তালমিলিয়ে এগিয়ে যাবে বা আদৌ তাদের দ্বারা তা সম্ভব কিনা তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ আছে।

মজার ব‍্যাপার হচ্ছে তালেবানদের রাষ্ট্র পরিচালনার মৃলনীতি,কি পরাষ্ট্রনীতি না দেখেই চীন তালেবানদের সমথ’ন দেওয়ার জন‍্য অনুরোধ করছে।সে যাই-ই হউক এবার তালেবানদের জিহাদের বিস্তৃতি ঘটবে পৃথিবীর বহুদেশে।এবং চীন সে আগুনে ঘি ঢালবে পরোক্ষভাবে।তাদের দিয়ে চীন অন‍্যান‍্য পরা শক্তিকে কাবু করার চেষ্টা করবে।কারন ইতিমধ্যে চীন পাকিস্তান,বামা’সহ পৃথিবীর বহু দেশের মৌলবাদ জিইয়ে রেখেছে তাদেরই স্বাথে’।

বিষয়টি বিশ্ব বাসীর কাছে পরিস্কার।পরিস্কার রাশিয়া,আমেরিকার বিষয়টিও।সে যাই হউক যে কারনেই তাদের দেশ থেকে সাধারণ জনগন দলে,দলে পালিয়ে যাকনা কেন তৃতীয় বিশ্বের লোক হিসাবে আমাদের ভাল থাকা কঠিন হবে এটা নিশ্চিত।তালেবানগন আমাদের জিহাদী সংগঠনের মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের ব‍্যবহার করে রাষ্ট্রকে অস্হির করে তুললেও অবাক হওয়ার কিছুই থাকবেনা বলে মনে করি….

www.bbcsangbad24.com