আগস্ট ২৩, ২০২১,

নিজস্ব প্রতিবেদক

করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজের সময় মাস থেকে কমিয়ে ১৫ দিন করার চিন্তা করা হচ্ছে বলে মন্ত্রিসভার বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সোমবার (২৩ আগস্ট) ভার্চ্যুয়াল মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক একথা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন দ্বিতীয় সময়টা একটু কমিয়ে দেওয়া যায় কিনা। এখন আমরা এক মাস দিচ্ছি। এক মাসের পরিবর্তে ১৫ বা ২০ দিন করে দিতে পারি কিনা, এটা বলেছেন। যদি সম্ভব হয় আমরা সেটাও করবো।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, অন্যান্য দেশে ১৫ দিনের মধ্যে দেওয়া হয়, সেই দেশের রেফারেন্স টেনে বলা হয়েছে। এখন আমরা ডব্লিউএইচও’র সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব।

জাহিদ মালেক বলেন, বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী বললেন, শ্রমিকদেরকে ভ্যাকসিন দেওয়ার জন্য। আমরা তো দিচ্ছি। ফ্রন্টলাইন ওয়ার্কার ডাক্তার-নার্স ও তাদের পরিবারকে দেওয়া হচ্ছে। সেনাবাহিনী, পুলিশ বাহিনী ও তাদের পরিবারের সদস্য, গণমাধ্যম কর্মী ও তাদের পরিবার, ছাত্রদের এবং বিদেশে যারা চাকরির জন্য যাচ্ছে তাদেরকেও দেওয়া হচ্ছে। শ্রমিকদেরকেও দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, কিছু কিছু গার্মেন্টস, ওনাররা চাচ্ছে সকল গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে যেন দেওয়া হয়। আমরা বলেছি ভ্যাকসিন প্রাপ্তি সাপেক্ষে পর্যায়ক্রমে দেওয়া হবে। আমরা চাই দেশের প্রতিটি মানুষ ভ্যাকসিন পাক এবং সুরক্ষিত থাকুক।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা ভ্যাকসিন দিচ্ছি, এতে সুরক্ষা বাড়বে। ভ্যাকসিন যারা নিয়েছেন তাদের মধ্যে মৃত্যুর হার খুবই কম। হাতে গোনা ১-২ হতে পারে। আমরা চাই সকলে ভ্যাকসিনেটেড হয়ে যাক এবং সুস্থ থাক। কিন্তু সংক্রমণ তো হয়। আমাদের এখন বিনোদনের জায়গাগুলো খুলে দেওয়া হয়েছে, রেস্টুরেন্ট ও যানবাহন খুলে দেওয়া হয়েছে। আমি আহ্বান করবো আপনারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে এসমস্ত জায়গা ব্যবহার করবেন। অবশ্যই মাস্ক পরবেন এবং দূরত্ব বজায় রাখবেন। সময়মতো টিকা নিয়ে নেবেন। তাহলে দেশ ভালো থাকবে। মৃত্যুর হার যেভাবে কমছে, ইনশাল্লাহ সংক্রমণও কমে যাবে।

www.bbcsangbad24.com