দেশ ও মানুষের কথা বলে

দুই শিশুকে হত্যার ভয়াবহ বর্ণনা দিলেন সেই মা

মার্চ ১৭, ২০২২,

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলায় নাপা সিরাপ খেয়ে দুই শিশুর মৃত্যুর ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন মা লিমা বেগম। জড়িত থাকার বর্ণনা দিয়ে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (১৭ মার্চ) দুপুরে জেলা সিনিয়র ম্যাজিস্ট্রেট দ্বিতীয় আদালতে হাজির হয়ে এ স্বীকারোক্তি দেন তিনি।

লিমার বেগমের বরাত দিয়ে আদালত সূত্র জানিয়েছে, চালকলে কাজ করার সময় সফিউল্লাহর সঙ্গে তার প্রেম হয়। প্রেমের এক পর্যায়ে তারা বিয়ের সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু এতে বাঁধা হয়ে দাঁড়ায় লিমার দুই সন্তান। এজন্য লিমা ও তার পরকীয়া প্রেমিক সফিউল্লাহ লিমার দুই সন্তানকে মেরে ফেরার সিদ্ধান্ত নেয়।

আদালত সূত্র আরও জানায়, লিমা সফিউল্লাহকে সন্তানদের জ্বরের কথা জানায়। পরে তারা সন্তানদের মেরে ফেলার পরিকল্পনা করেন। পরিকল্পনা অনুযায়ী মিষ্টির সঙ্গে বিষ মিশিয়ে দুই সন্তান ইয়াসিন খান (৭) ও মুরসালিন খানকে (৪) খাওয়ান লিমা। এতে তাদের মৃত্যু হয়।

আশেপাশের লোকজন একই সঙ্গে ২ জনের মৃত্যু নিয়ে প্রশ্ন করতে শুরু করে। এরই এক ঘণ্টার মধ্যে ঘটনার মোড় পাল্টে দেওয়ার জন্য লিমা জানায় নাপা সিরাপ খেয়ে তার সন্তানদের মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে, পুলিশ জানিয়েছে এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। এ ঘটনায় ওই দুই শিশুর বাবা ইসমাঈল হোসেন বাদী হয়ে বুধবার (১৬ মার্চ) লিমা বেগম ও তার পরকীয়া প্রেমিক সফিউল্লাসহ অজ্ঞাত আরও দুইজনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। পরে বৃহস্পতিবার (১৭ মার্চ) ভোরে শিশুর মা লিমা বেগমকে (৪০) গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে তার জবানবন্দির জন্য আদালতে পাঠানো হয়।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোল্লা মোহাম্মদ শাহীন জানান, ওই দুই শিশুর মা একটি চালকলে চাকরি করতো। সেখানে সফিউল্লাহ নামে একজনের সঙ্গে পরিচয় ও প্রণয় গড়ে উঠে। পরে তারা বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেয়। দুই ছেলে এ পথে বাঁধা মনে করেন তারা। পরে তাদেরকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়।

তিনি আরও জানান, পূর্বপরিকল্পনা করে মিষ্টির সঙ্গে বিষ মিশিয়ে দুই শিশুকে খাইয়ে হত্যা করে মা লিমা বেগম। এ ঘটনাটি ভিন্নখাতে নেওয়ার জন্য নাপা সিরাপের রিঅ্যাকশন হয়েছে বলে প্রচার করেন তিনি।

পুলিশের এ কর্মকর্তা জানান, লিমার আচরণে পুলিশের সন্দেহ হয়। অধিকতর জিজ্ঞাসায় সে হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করে। এ ঘটনায় লিমার প্রেমিক সফিউল্লাকেও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

এর আগে শুক্রবার (১১ মার্চ) রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে নাপা সিরাপ খেয়ে একই পরিবারের দুই শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ ওঠে। এ ঘটনায় জেলা কেমিস্ট অ্যান্ড ড্রাগিস্ট সমিতির পক্ষ থেকে নাপা সিরাপ বিক্রি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়। এ অভিযোগের সত্যতা যাচাই করতে সারা দেশ থেকে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের (প্যারাসিটামল ১২০ মি. গ্রাম/৫ মি. গ্রাম, ব্যাচ নম্বর ৩২১১৩১২১, উৎপাদন তারিখ ১২/২০২১, মেয়াদোত্তীর্ণ তারিখ ১১/২০২৩) উৎপাদিত নাপা সিরাপের নমুনা পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর।

www.bbcsangbad24.com

Leave A Reply

Your email address will not be published.