দেশ ও মানুষের কথা বলে

অপহরণের দশ দিন: লাশ মিললো সেপটিক ট্যাঙ্কে

মার্চ ২৭, ২০২২,

সাভার প্রতিনিধি:

অপহরণের দশ দিন পরে সাভারে সেপটিক ট্যাঙ্কের ভিতর থেকে এক কলেজছাত্রের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রাতে উপজেলার বনগাঁও ইউনিয়নের কোন্ডা কোর্টাপাড়া এলাকার একটি নির্মাণাধীন বাড়ির সেপটিক টাঙ্কের ভিতর থেকে তার লাশ উদ্ধার করে সাভার মডেল থানা পুলিশ।

নিহত ওই কলেজ শিক্ষার্থীর নাম শাকিব আল হাসান (১৯)। সে কোন্ডা কোর্টাপাড়া এলাকার  কাঞ্চন মিয়ার ছেলে। সে সাভারের আমিনবাজার এলাকার মিরপুর মফিদ ই আম স্কুল এন্ড কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী ছিলো।

নিহত ওই কলেজ শিক্ষার্থীর পরিবারের সদস্যরা জানায়, গত ১৭ মার্চ শাকিব আল হাসানকে কোন্ডা কোর্টাপাড়া এলাকার নিজ বাড়ি থেকে রাতে কয়েকজন উঠতি বয়সী বন্ধু বাড়ি থেকে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে যান।

পরে পূর্ব শক্রতার জের ধরে ওই দিনেই তাকে কুপিয়ে ও শ্বাসরোধ করে হত্যা করে লাশ ওই এলাকার একটি নির্মাণাধীন বাড়ির সেপটিক ট্যাঙ্কের ভিতরে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় তারা। পরে ওই দিনেই ওই শিক্ষার্থীও পরিবার অপহরণের একটি সাধারণ ডায়রি করেন সাভার মডেল থানায়।

পরে পুলিশ আজ রাতে স্থানীয়দের কাজ থেকে খবর পেয়ে ওই নির্মাণাধীন বাড়ির সেপটিক ট্যাঙ্কের ভিতর থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে প্রেরণ করে। খবর পেয়ে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

এদিকে অপহরণের পর থেকে নিহত ওই শিক্ষার্থীর বন্ধুরা নিহতের ফেসবুক ব্যবহার করে তার পরিবারের কাছে বলতেন তিনি ভালো আছেন নিরাপদে আছেন কোন টেনশন যেন না করা হয়।

এ ঘটনায় নিহতের পরিবারে চলছে কান্নার রোল।

অপরদিকে সাভারের রাজাশন এলাকার একটি বাড়ি থেকে অজ্ঞাত এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ

এ বিষয়ে সাভার মডেল থানার ওসি তদন্ত মোমেনুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ওই শিক্ষার্থীকে কি কারণে হত্যা করা হয়েছে বিষয়টি তদন্ত করছে পুলিশ। এছাড়া হত্যার ঘটনায় জড়িতদের আটকের প্রক্রিয়া চলছে। এ ঘটনায় সাভার মডেল থানায় দুটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

www.bbcsangbad24.com

Leave A Reply

Your email address will not be published.