দেশ ও মানুষের কথা বলে

যুদ্ধে জড়াতে চাই না, তবে প্রস্তুত থাকতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

মার্চ ২৯, ২০২২,

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কারও সঙ্গে যুদ্ধে জড়াতে চায় না বাংলাদেশ। কিন্তু বহিঃশত্রুর আক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে সর্বদা প্রস্তুত থাকতে হবে সশস্ত্র বাহিনীকে। সরকারপ্রধান বলেন, যে কোনো হুমকি মোকাবিলায় প্রতিটি বাহিনীকে সক্ষম করে গড়ে তোলা হচ্ছে।

মঙ্গলবার (২৯ মার্চ) সকাল ১০টায় ভিডিও কনফারেন্সে পদ্মা সেতুর নিরাপত্তায় নবনির্মিত শেখ রাসেল সেনানিবাস উদ্বোধনকালে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা যুদ্ধ চাই না। তবে প্রস্তুত থাকতে হবে। যদি কখনো বহিঃশত্রুর আক্রমণ হয়, আমরা যেন যথাযথভাবে মোকাবিলা করতে পারি। দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষা করতে পারি।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে ধন্যবাদ জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, আমার ছোট দুই ভাই (শেখ কামাল ও শেখ জামাল) সেনাবাহিনীতে ছিল। ছোট ভাই রাসেলেরও ইচ্ছা ছিল আর্মি অফিসার হবে, হতে পারেনি। আমি সেনাবাহিনীকে ধন্যবাদ জানাই, তার নামে সেনানিবাস করায়। এরমধ্য দিয়ে রাসেলের আকাঙ্ক্ষা পূর্ণ না হলেও নামটা সেনাবাহিনীর সঙ্গে যুক্ত থাকলো।

এসময় পদ্মা সেতুর নির্মাণের নানা গল্প তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী বলেন, দুর্নীতির মিথ্যা অভিযোগে বিশ্বব্যাংক অর্থায়ন করবে না বলে ঘোষণা দেয়। আমরাও নিয়েছি চ্যালেঞ্জ। ৭ মার্চের ভাষণে জাতির পিতা বলেছিলেন ‘বাঙালিকে কেউ দাবায়ে রাখতে পারবে না’। সেই প্রসঙ্গ ধরে শেখ হাসিনা বলেন, ‘বাঙালিদের কেউ দাবায়া রাখতে পারে না, পারবে না। আমরা যদি ইচ্ছা করি, অসাধ্য সাধন করতে পারি। সেটা নয় মাসের মুক্তিযুদ্ধে বিজয় অর্জন করে প্রমাণ করেছি। আজকে সেই পদ্মা সেতু আমরা নির্মাণ করেছি এবং তার কাজও প্রায় সম্পন্ন।’

দেশবাসীর প্রতিও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি জাতির কাছে কৃতজ্ঞ। সাহসী ভূমিকা এবং সমর্থন পেয়েছি বলেই এটা করা সম্ভব হয়েছে। তাছাড়া আন্তর্জাতিক বন্ধুপ্রতিম দেশও আমাদের সমর্থন দিয়েছে।’

এই সেতু নির্মাণের ফলে দেশের অর্থনীতিতে গতি আসবে বলেও জানান সরকারপ্রধান। তিনি বলেন, ‘এই সেতু নির্মাণের ফলে আমরা মনে করি, আমাদের জিডিপিতে অন্তত আরও এক থেকে দুই ভাগ সংযুক্ত হবে। আমরা উন্নয়নে আরও একধাপ এগিয়ে যেতে পারব। সেটা আমি বিশ্বাস করি।’

এর মধ্য দিয়ে সেনানিবাস সংলগ্ন এলাকার মানুষের জীবন মানের উন্নয়ন হবে বলেও মনে করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আজকের ওই অঞ্চলের উন্নয়ন, এটা দৃশ্যমান। মানুষের কাছেও একটা বিস্ময়। হ্যাঁ, বাংলাদেশ এভাবে উন্নতি করতে পারে। আমরা চাই আমাদের দেশ এগিয়ে যাবে, দেশ আরও উন্নত হবে।’

www.bbcsangbad24.com

Leave A Reply

Your email address will not be published.