দেশ ও মানুষের কথা বলে

জয়পুরহাটের ক্ষেতলালে ভুয়া চিকিৎসক গ্রেফতার

এপ্রিল,০৭,২০২২

ফারহানা আক্তার, জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃ

জয়পুরহাট ক্ষেতলালে অন্য ব্যক্তির সনদ ও বিএমডিসির নিবন্ধন নম্বর ব্যবহার করা এক ভুয়া চিকিৎসককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার (৬ এপ্রিল)সুন্ধায় ক্ষেতলাল আল শেফা ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত ওই ভুয়া চিকিৎসকের নাম মাসুদ রানা সে সৈয়দপুরের হাতিখানা গ্রামের শেখ মোঃ আব্দুল হান্নানের ছেলে মাসুদ রানা। এর আগেও এই মাসুদ পাবনা, হবিগঞ্জেও আটক হয়েছিল।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গ্রেফতারকৃত মাসুদ রানা ২০১১ সাল থেকে দেশের বিভিন্ন ক্লিনিকে লক্ষাধিক টাকা বেতনে কর্মরত থেকে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছিলেন। তিনি ঢাকার ডা: মাসুদ করিমের নাম, বিএমডিসির নিবন্ধন নং ৩৩৩৬০ বর্তমানে ও সনদ ব্যবহার করে চিকিৎসক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।
ক্ষেতলাল আল-শেফা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে রোগী দেখতেন মাসুদ করিম। রোগীর ব্যবস্থাপত্রে এমবিবিএস (ঢাকা) ছাড়াও পিজিটি (মেডিসিন ও সার্জারি), ডিএমইউ (ঢাকা) ডিগ্রি ব্যবহার করতেন। চিকিৎসকদের সনদ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিল (বিএমডিসি) এবং বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) সনদ নম্বরও উল্লেখ করেছেন।
ডায়াবেটিস, মা ও ,গাইনি, হাঁপানি, নাক-কান-গলা (অপারেশন ব্যতীত), বাত-ব্যথা, হার্ট, চর্ম ও যৌন রোগের রোগী দেখতেন। তিনি সকাল ৯টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত রোগী দেখতেন আর নিজেকে পরিচয় দিতেন মেডিসিন বিশেষজ্ঞ হিসেবে।
এদিকে একজন রোগীর দেওয়া তথ্যে মতে তাকে আটক করে পুলিশ। পরে বুধবার রাত সাড়ে ৯টায় ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে ৪০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হয়েছে। ক্ষেতলাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইশতিয়াক আহমেদ এ রায় দেন।ক্ষেতলাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রওশন ইয়াজদানী বলেন, মো. মাসুদ করিম নিজেকে এমবিবিএস (মেডিসিন বিশেষজ্ঞ) চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে ক্ষেতলাল উপজেলার আল-শেফা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে রোগী দেখতেন।জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে
ভুয়া এমবিবিএস চিকিৎসক বলে স্বীকার করেন
ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তার জরিমানা করা হয়েছে।ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ইউএনও ইশতিয়াক আহমেদ বলেন, মাসুদ রানা চিকিৎসক নন। তিনি চিকিৎসক দাবি করে একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারে রোগী দেখছিলেন। ভোক্তা সংরক্ষণ অধিকার আইনে তার ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। পাশাপাশি তিনি বাংলাদেশের কোথাও রোগী দেখবেন না বলে মুচলেকা দিয়েছেন।

www.bbcsangbad24.com

Leave A Reply

Your email address will not be published.