দেশ ও মানুষের কথা বলে

দুপুরের মধ্যে শেষ করার নির্দেশ বৈশাখের অনুষ্ঠান

এপ্রিল ১২, ২০২২,

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম বলেছেন, আসন্ন বাংলা নববর্ষ বরণে পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান ওই দিন (বৃহস্পতিবার) দুপুর ২টার মধ্যে শেষ করতে হবে।

মঙ্গলবার (১২ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১১টায় রমনা বটমূলে নববর্ষের নিরাপত্তা ব্যবস্থা পরিদর্শন শেষে এ কথা বলেন ডিএমপি কমিশনার।

শফিকুল ইসলাম বলেন, এবার রোজার মধ্যে পহেলা বৈশাখে অনুষ্ঠান হবে। তাই এবার পহেলা বৈশাখে কোনো খাবার দোকানে খোলা থাকবে না। রোজার মাস হওয়ায় রমনা বটমূল ও এর আশপাশ এলাকার পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান দুপুর ২টার মধ্যে শেষ করতে হবে। দুপুর ১টার পরে আর কাউকে এই এলাকায় প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

কমিশনার বলেন, পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠান চলাকালে অনুষ্ঠান এলাকায় যানবাহন বন্ধ করা হবে। প্রতিটি প্রবেশ গেটে তল্লাশি করা হবে। সিসিটিভি ক্যামেরায় সম্পূর্ণ এলাকা নজরদারিতে থাকবে।

অভিভাবকদের উদ্দেশ করে কমিশনার বলেন, এবারের অনুষ্ঠানে শিশুদের না নিয়ে আসাই ভালো হবে। কারণ মেলা শহরের আশপাশে কোনো খাবার দোকান খোলা থাকবে না। এছাড়া এবারের অনুষ্ঠানে পান্তা ইলিশের ব্যবস্থাও থাকবে না।

অনুষ্ঠানস্থলে সবাইকে চেক করে প্রবেশ করানো হবে। এছাড়া মঙ্গল শোভাযাত্রায় কেউ হুটহাট করে এসে প্রবেশ করতে পারবেন না। কেউ এমন চেষ্টা করলে দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্যরা কঠোর ব্যবহার করতে বাধ্য হবে।

এবারের অনুষ্ঠান ঘিরে ঢাকা মহানগর পুলিশের পক্ষ থেকে ডগ স্কট ইউনিট, বোম ডিসপোজাল ইউনিট, সাদা পোশাকের সদস্য, সোয়াদ টিম আর রমনা লেকে থাকবে নৌপুলিশের টিম ও ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল।

কমিশনার বলেন, এবার ইভটিজিংয়ের বিষয়ে পুলিশ সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থানে থাকবে। কারণ প্রতিবার যেখানে গেদারিং হয় ওখানে নারীদেরকে হেনস্থা করার ঘটনা ঘটে। এজন্য ইভটিজিং রোধে পুলিশের পক্ষ থেকে সাদা পোশাকে বিশেষ দল কাজ করবে।

এছাড়া অনুষ্ঠানস্থলে মুখোশ পরে কাউকে না আসার জন্য বলেছেন কমিশনার আর উচ্চ বাদ্যযন্ত্র ব্যবহার থেকে বিরত থাকার অনুরোধ করেছেন তিনি।

www.bbcsangbad24.com

Leave A Reply

Your email address will not be published.