দেশ ও মানুষের কথা বলে

উত্তাল সাগরে ৪০০ জেলে নিখোঁজ

আগস্ট ২০, ২০২২,

নিজস্ব প্রতিবেদক

বৈরী আবহাওয়ার কারণে বরগুনার পাথরঘাটার প্রায় ৪শ জেলেসহ অন্তত ৪১টি মাছ ধরা ট্রলার নিখোঁজ রয়েছে। এখন পর্যন্ত ৩৩ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। নিম্নচাপের কারণে বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) থেকে সাগর উত্তাল থাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার (২০ আগস্ট) দুপুর দেড়টার দিকে নিখোঁজ ট্রলার মালিকদের বরাত দিয়ে বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. মাসুম মিয়া এ তথ্য জানিয়েছেন।

এর আগে শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে বরগুনার পাথরঘাটা পৌরশহরের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সুজন হাওলাদারের মালিকানাধীন এফবি হাওলাদার নামের একটি ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটলেও তাদের ১৭ জেলেকে অন্য একটি ট্রলার উদ্ধার করে পাথরঘাটা বিএফডিসি ঘাটে নিয়ে এসেছে।

তবে এখন পর্যন্ত ট্রলার মালিক, ট্রলার ও জেলেদের নাম জানা যায়নি।

মো. মাসুম মিয়া জানান, কয়েক দিন আগে একটি নিম্বচাপ শেষ হয়েছে, এর পরেই উপকূলের জেলেরা তাদের ট্রলারে রসদ সামগ্রী নিয়ে মাছ শিকারের জন্য গভীর সমুদ্রে রওয়ানা দেয়।

আবারো নিম্নচাপ শুরু হলে সাগর উত্তাল হয়ে পড়ায় গত বৃহস্পতিবার থেকে এ পর্যন্ত বিভিন্ন উপজেলার কয়েকটি ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটলেও এখন পর্যন্ত পাথরঘাটা উপজেলায় ৩০টি এবং মহিপুরে ১১টি মাছধরা ট্রলার নিখোঁজ রয়েছে। এফবি হাওলাদার ট্রলারটি ডুবে গেলেও তাদের জেলেদের উদ্ধার করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, ঘটনার সাথে সাথেই কোস্টগার্ডসহ সরকারি দফতরগুলোকে জানানো হয়েছে এবং বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির পক্ষ থেকে জেলেদের সন্ধানে বেশ কয়েকটি ট্রলার উদ্ধার অভিযানে কাজ করে যাচ্ছে। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে নিখোঁজ ট্রলার ও জেলেরা সমুদ্রে ডুবে যেতে পারে।

বরগুনা জেলা ফিশিং ট্রলার শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. দুলাল মাস্টার বলেন, হঠাৎ করে নিম্নচাপ শুরু হলে এফবি হাওলাদার নামের একটি ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটে।

পাথরঘাটা আনছার খানের মালিকানাধীন ট্রলারের মাঝি ইসমাইল হোসেন ডুবে যাওয়া ওই ট্রলারের ১৭ জেলেকে ভাসতে দেখে তাদের উদ্ধার করে নিয়ে আসেন।

উদ্ধারকৃত জেলেরা সুস্থ আছেন। এখন পর্যন্ত ডুবে যাওয়া ট্রলারের সন্ধান পাওয়া যায়নি। তবে হঠাৎ এই প্রচণ্ড ঝড়ের কবলে পরে নিখোঁজ ট্রলারগুলো ডুবে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোনের মিডিয়া কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট কেএম সাফিউল কিঞ্জল জানান, গত দুই দিন ধরে নিম্নচাপের কারণে সাগর উত্তাল থাকায় অনেক ট্রলারডুবি ও নিখোঁজের ঘটনা শুনেছি।

এ খবর পাওয়ার সাথে সাথেই কোস্টগার্ডের পক্ষ থেকে পাথরঘাটা, হাতিয়া, চরফ্যাশন, নিজামপুর, পায়রা পোর্টসহ মোট ৬টি টিম গভীর সমুদ্রে জেলেদের উদ্ধার অভিযানে রয়েছে এবং গতকালও ছিল। আবারো শনিবার (২০ আগস্ট) সকাল ৮টা থেকে এ উদ্ধার অভিযান শুরু হয়েছে যা সারাদিন চলমান থাকবে।

তিনি আরো জানান, ট্রলার মালিক সমিতি থেকে বলা হয়েছে ৪১টি ট্রলার নিখোঁজ রয়েছে, তবে আমরা কাজ করছি ট্রলারের নাম সংগ্রহ করার। আমাদের কাছে নাম আসছে। তবে এখন পর্যন্ত মোট ১৮২ জন নিখোঁজ জেলের সংখ্যা তাদের হাতে এসেছে।

৬৫ দিনের সরকারি নিষেধাজ্ঞা শেষে সাগরে গেলেও লঘুচাপের প্রভাবে দ্রুত ফিরে ১৫ দিন ধরে উপকূলের আশ্রয়ে ছিলেন জেলেরা।

আবহাওয়ার উন্নতি হলে মাত্র তিনদিন আগে সাগরে যাওয়ার পর শুরু হয় বৈরী আবহাওয়া, লঘুচাপ, দেখানো হয় আবারও ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত। এতে আকস্মিক ঝড়ের কবলে পড়ে সাগরে অবস্থানরত বিপুল সংখ্যক জেলেসহ অসংখ্য মাছধরা ট্রলার।

www.bbcsangbad24.com

Leave A Reply

Your email address will not be published.