দেশ ও মানুষের কথা বলে

, নারায়ণগঞ্জে জ্বালানি তেলের সংকট দ্রুত সমাধানের দাবিতে সমাবেশ

আগস্ট,২৬,২০২২

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

ফুলবাড়ি দিবস উপলক্ষে আজ বিকেলে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহিদমিনারে জ্বালানি তেল ও নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম কমানো এবং বিদ্যুৎ সংকট দ্রুত সমাধানের দাবিতে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি, নারায়ণগঞ্জ জেলার সমাবেশ ও পরে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানের শুরুতে ২০০৬ সালে দিনাজপুর জেলার ফুলবাড়িতে সম্পাদ রক্ষার আন্দোলনে নিহত শহিদদের উদ্দেশ্যে শহিদবেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

সংগঠনের জেলা আহ্বায়ক রফিউর রাব্বির সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব ধীমান সাহা জুয়েলের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সিপিবির জেলা সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, বাসদের জেলা আহ্বায়ক নিখিল দাস, নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক শাহীন মাহমুদ, গণসংহতি আন্দোলন জেলা নির্বাহী সমন্বয়ক অঞ্জন দাস, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি জেলা সভাপতি মাহমুদ হোসেন, ওয়ার্কার্স পার্টি জেলা সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য গোলাম মোস্তফা সাদ ও সামাজিক সংগঠন সমমনার সাধারণ সম্পাদক গোবিন্দ সাহা।

রফিউর রাব্বি বলেন, নিজেদের অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে তৈরী বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সংকটের বোঝা সরকার জনগণের কাঁধে চাপিয়ে দিয়েছে। সরকার এ সংকটের জন্য বিশ্ব-পরিস্থিতিকে দায়ি করলেও দীর্ঘ ১২ বছরে তারা নিজেরাই এ সংকট তৈরী করেছে। জ্বালানির কথা না ভেবে একরে পর এক বিদ্যুৎকেন্দ্র তৈরী করেছে। সরকারের অদূরদর্শিতা, দুর্নীতি, নিজেদের দেশী ও বিদেশী স্বজন-সংশ্লিষ্টদের বেপরোয়া লুটপাটের সুযোগ করে দেয়ার কারণে আজকে এ সংকট চরম আকার ধারণ করেছে। সরকার রেন্টাল, কুইক রেন্টাল বিদ্যুৎ ব্যাবস্থাপনায় গিয়ে একদিকে দেশী-বিদেশী এজেন্টদের লুটপাটের সুযোগ করে দিয়েছে অন্যদিকে উচ্চমূল্যে জনগণকে বিদ্যুৎ কিনতে বাধ্য করেছে। বিদ্যুৎ উৎপাদন না করলেও বসিয়ে রেখে গত ১১ বছরে নিজেদের পছন্দের ১২ টি কোম্পানীকে ৯০ হাজার কোটি টাকা দিয়েছে। এ সব অনিয়েমের বিরুদ্ধে কেউ যাতে আদালতে যেতে না পারে তার জন্য দায়মুক্তি আইন করেছে। অন্যদিকে এই সময়ে ৯ বার বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি করে তার দায় জনগণের ঘাড়ে চাপিয়েছে। তিনি বলেন, এক সময় বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার বন্ধ করতে সরকার ইনডেমনিটি আইন করেছিল, কিন্তু পরবর্তীতে আইন সংশোধন করেই আবার আওয়ামী লীগ সরকার সে বিচার সম্পন্ন করেছে। আজকে অপরাধীদের রক্ষার জন্য আওয়ামী লীগ যে দায় মুক্তি আইন করেছে এ আইন সংশোধন করে তাদেরও একদিন বিচারের আওতায় আনা হবে।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, গত সাত বছরে বিপিসি ৪৮ হাজার ১২২ কোটি টাকা মুনাফা করেছে অথচ গত ৫ মাসে ৮ হাজার কোটি টাকা লোকসানের অজুহাত দেখিয়ে জ্বালানি তেলের দাম ৫০ শতাংস বৃদ্ধি করে নিত্য ব্যাবহার্য সকল পণ্যের দাম, পরিবহন ভাড়া বৃদ্ধির পথ তৈরী করে সরকার মানুষের জীবনকে আজ দুর্বিসহ করে তুলেছে। বক্তারা সরকারের এ দুর্নীতির সাথে জড়িত সকলের বিচারের আওতায় এনে শাস্তি দাবি জানান। পরে একটি বিক্ষোভ মিছিল শহর প্রদক্ষিণ করে।

www.bbcsangbad24.com

Leave A Reply

Your email address will not be published.